What we offer

৳ 120.00

কিভাবে খাবেন/কেন খাবেন

সর্দি, কাশি এবং গলা ব্যাথাতে বহু যুগ ধরে ব্যবহার হয়ে আসছে তালমিছরি। ১ চা চামচ তালমিছরি, ১ চা চামচ ঘি আর অর্ধেক চা চামচ গোলমরিচের গুঁড়া দিয়ে মিশ্রণ বানিয়ে খেয়ে দেখুন, গলা ব্যাথা সেরে যাবে।
গরমে হিট স্ট্রোক হলে- সমপরিমাণ ধনিয়া গুঁড়ার সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে পানির সাথে পান করলে পেট ঠান্ডা হয়।
হজমের অসুবিধাতে পেট ব্যাথা হলে, সমপরিমাণ নিমপাতা গুঁড়ার সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে খেতে পারেন, পেট ব্যাথা চলে যাবে।
সমপরিমাণ তালমিছরি আর এলাচ গুঁড়ো পানি মিশিয়ে পেস্ট করে মুখের আলসারে লাগিয়ে রাখুন, জ্বালা পোড়া কমবে।
শিশুর মস্তিস্ক বিকাশেও ভুমিকা রাখে তালমিছরির পানি।এছাড়াও বাচ্চাদের নানা ধরনের রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে।
সাইনাস, মোবাইল/টিভি/কম্পিউটারে এক নাগাড়ে কাজ করে চোখের উপর চাপ পড়েছে? মাথা ব্যাথা করছে? সমপরিমাণ আদার রসের সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে খেয়ে দেখুন। মাথা ব্যাথা কমে যাবে।
প্রচুর পরিমানে আয়রন,পটাসিয়াম থাকার কারনে রক্তাপ্লতায় ভোগেন যারা তাদের জন্য আদর্শ তালমিছরি।
আর্থ্রাইটিস, অস্টিওপরেসিস- হাড়ক্ষয়ের রোগে নিয়মিত তালমিছরি খেলে উপকার পাওয়া যায়।

সতর্কতা-
যদিও এটা প্রাকৃতিকভাবে তৈরি, গ্লাইসেমিক ইন্ডেক্স (GI) এর পরিমান ৩৫% থাকে,তাও অনুরোধ থাকবে, যারা ডায়াবেটিক এর রোগী, তারা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী খাবেন

৳ 30.00

তোকমার দানায় প্রতি ১০০ গ্রামে লৌহ, ক্যালসিয়াম, থিয়ামিন, ম্যাংগানিজ, দস্তা, ফসফরাস, ভিটামিন-বি, ফোলেইট এবং রিবোফ্ল্যাভিন পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকে।
বেশ জনপ্রিয় তোকমা’র শরবত আমাদের দেশে। আসুন দেখে নেই, কি কি উপকারিতা রয়েছে।
উপকারিতা-
• রক্তে শর্করা ও কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ
• খনিজ পদার্থ ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এ ভরপুর।
• এসিডিটি দূর করে
• গরমে, শরীর কে ঠান্ডা করতে সাহায্য করে।
• এছাড়াও এতে প্রচুর আঁশ থাকায় হজম, কোষ্টকাঠিন্য, ডায়রিয়া, আমাশয় ইত্যাদি সমস্যায় বেশ উপকারী ভূমিকা রাখে।

৳ 100.00

  • কাশতে কাশতে অনেক সময় সর্দি উঠে যায়,যাকে আয়ুর্বেদ মতে “পেট গরমের কাশি” বলে, সেক্ষেত্রে ১ চিমটি গোল মরিচের গুঁড়া, অর্ধেক চা চামচ ঘি, অর্ধেক চা চামচ মধু মিশিয়ে অল্প করে চেটে খেতে হবে। দিনে ২/৩ দিন বার, তাহলে ২/৩ দিনের মধ্যে “পেট গরমের কাশি ভাল হয়ে যাবে।
  • অনেক সময় ভারি খাবার বা খুব তেল চর্বি খাবার খেলে পেট ভার লাগে। গলা বুক জ্বালা হয়, বমিও হয়ে যায়। ১ চিমটি গোল মরিচ গুঁড়া ১০০ মিলি পানির সাথে মিশিয়ে পান করলে আরাম লাগবে।হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড থাকার কারনে হজমে সহায়তা করে। কিন্তু এটা কে অভ্যাস এ পরিনত করা যাবে না।
  • সর্দি কাশিতে দারুন উপকারি। ১ চিমটি গোলমরিচের গুঁড়া, ১ চামচ মধু মিশিয়ে, ২/৩ বার চেটে খান। আরাম পাবেন।
  • ভাইরাল ইনফেকশন রোধে সাহায্য করে। ভিটামিন সি থাকাতে গোলমরিচ anti-biotic হিসেবে কাজ করবে।
৳ 80.00

সাদা তিল(আস্ত)
পরিমান-৮০ গ্রাম
৮০ টাকা

১. রক্তের উচ্চচাপ নিয়ন্ত্রণে প্রভূত কার্যকরী সাদা তিল। কারণ, এই তিলে রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম যা রক্তচাপ হ্রাস করে।
২. সাদা তিলে একাধিক প্রয়োজনীয় ভিটামিন এবং মিনারেলস রয়েছে। তাই প্রতিদিনের খাবারে এই উপকরণটি ব্যবহার করলে শরীরের ক্যানসার প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে যায়।
৩।সাদা তিলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে জিঙ্ক, ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস, যা হাড় মজবুত করে এবং অস্টিওপোরোসিসের সম্ভাবনা কমায়।
৪.ফাইবার-যুক্ত হওয়ার ফলে হজম ও কোষ্ঠকাঠিন্য-সংক্রান্ত সমস্যাও দূর করে।
৫.সাদা তিলে রয়েছে কপার বা তামা যা গাঁটের ব্যথা, ফুলে যাওয়া, মাসল পেইন বা বাতের ব্যথার উপশমে কার্যকরী।
কিভাবে খাবেন-
১। এই তিল গুলো হালকা টেলে গুঁড়া করে, কাঁচা পেঁয়াজ, কাঁচা মরিচ, ধনেপাতা, লবন দিয়ে মাখিয়ে খেতে পারেন। চাইলে অল্প তিসির তেল/ সাদা তিলের তেল/ কালো তিলের তেল ও যোগ করতে পারেন।
২। ঘরে তৈরি যে কোন রকমের রুটির উপর দিয়ে বেক করতে পারেন।
৩। থাই/চাইনিজ খাবার রান্না তে ব্যবহার করতে পারেন।

৳ 95.00

চিয়া দানা/Chia Seeds
বহুল জনপ্রিয় চিয়া দানা এখন আমাদের দেশের বিভিন্ন জেলাতে চাষ হচ্ছে।মেক্সিকো ও দক্ষিণ আমেরিকাতে জন্ম নেয়া এই ছোট্ট দানা এখন চাঁদপুর, যশোর ও ময়মসিংহ এলাকায় চাষ হচ্ছে অল্প পরিমানে।
কি রয়েছে চিয়া দানাতে-
🧚‍♀️দুধের চেয়ে ৫ গুণ বেশী ক্যালসিয়াম
🧚‍♀️কমলার চেয়ে ৭ গুণ বেশি ভিটামিন সি
🧚‍♀️পালং শাকের চেয়ে ৩ গুণ বেশী আয়রন (লোহা)
🧚‍♀️কলার চেয়ে দ্বিগুণ পটাশিয়াম
🧚‍♀️স্যামন মাছের থেকে ৮ গুণ বেশী ওমেগা-৩

৳ 120.00

পণ্যঃ-ধনিয়া গুঁড়া
পরিমান: ২০০ গ্রাম
মূল্য: ১২০ টাকা
ঢেঁকিতে ভাঙ্গানো মশলাতে কোন ক্ষতিকারক preservative দেয়া নেই

৳ 1,750.00

লিলেন মেটেরিয়ালে তৈরি আনস্টিচ থ্রিপিছ।

পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে আমরা সচেতন।

কামিজ লম্বা ৫০’ ইন্চি

হাত লম্বা ২৪ ইন্চি

ওড়না ৫ হাত (জরজেট)

পায়জামা ২ গজ (২.৫ হাত বহর)

দাম ১৭৫০ টাকা

৳ 160.00

ঢেঁকি ছাঁটা হলুদ গুঁড়া
পরিমান: ৪০০ গ্রাম

মূল্য: ১৬০ টাকা

৳ 225.00

গ্রামীণ আচারের একটা মজা হচ্ছে, মরশুমি সবজির ব্যবহার। যেমন এখন গাজরের সময়, ক্ষেতের রাসায়নিক-মুক্ত গাজর শুকিয়ে জলপাই আচারে ব্যবহার হয়েছে।
উপাদান-জলপাই, গাজর, গুড়,অন্যান্য মশলা, ও সরিষার তেল।
স্বাদ: টক-ঝাল-মিস্টি
ওজন-৩৫০ গ্রাম
মুল্য-২৫০ টাকা
সংরক্ষণ পদ্ধতি-মাঝে মাঝে রোদে রাখুন। সব সময় শুকনো চামচ ব্যবহার করুন।

৳ 120.00

কিভাবে খাবেন/কেন খাবেন

সর্দি, কাশি এবং গলা ব্যাথাতে বহু যুগ ধরে ব্যবহার হয়ে আসছে তালমিছরি। ১ চা চামচ তালমিছরি, ১ চা চামচ ঘি আর অর্ধেক চা চামচ গোলমরিচের গুঁড়া দিয়ে মিশ্রণ বানিয়ে খেয়ে দেখুন, গলা ব্যাথা সেরে যাবে।
গরমে হিট স্ট্রোক হলে- সমপরিমাণ ধনিয়া গুঁড়ার সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে পানির সাথে পান করলে পেট ঠান্ডা হয়।
হজমের অসুবিধাতে পেট ব্যাথা হলে, সমপরিমাণ নিমপাতা গুঁড়ার সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে খেতে পারেন, পেট ব্যাথা চলে যাবে।
সমপরিমাণ তালমিছরি আর এলাচ গুঁড়ো পানি মিশিয়ে পেস্ট করে মুখের আলসারে লাগিয়ে রাখুন, জ্বালা পোড়া কমবে।
শিশুর মস্তিস্ক বিকাশেও ভুমিকা রাখে তালমিছরির পানি।এছাড়াও বাচ্চাদের নানা ধরনের রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে।
সাইনাস, মোবাইল/টিভি/কম্পিউটারে এক নাগাড়ে কাজ করে চোখের উপর চাপ পড়েছে? মাথা ব্যাথা করছে? সমপরিমাণ আদার রসের সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে খেয়ে দেখুন। মাথা ব্যাথা কমে যাবে।
প্রচুর পরিমানে আয়রন,পটাসিয়াম থাকার কারনে রক্তাপ্লতায় ভোগেন যারা তাদের জন্য আদর্শ তালমিছরি।
আর্থ্রাইটিস, অস্টিওপরেসিস- হাড়ক্ষয়ের রোগে নিয়মিত তালমিছরি খেলে উপকার পাওয়া যায়।

সতর্কতা-
যদিও এটা প্রাকৃতিকভাবে তৈরি, গ্লাইসেমিক ইন্ডেক্স (GI) এর পরিমান ৩৫% থাকে,তাও অনুরোধ থাকবে, যারা ডায়াবেটিক এর রোগী, তারা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী খাবেন

৳ 30.00

তোকমার দানায় প্রতি ১০০ গ্রামে লৌহ, ক্যালসিয়াম, থিয়ামিন, ম্যাংগানিজ, দস্তা, ফসফরাস, ভিটামিন-বি, ফোলেইট এবং রিবোফ্ল্যাভিন পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকে।
বেশ জনপ্রিয় তোকমা’র শরবত আমাদের দেশে। আসুন দেখে নেই, কি কি উপকারিতা রয়েছে।
উপকারিতা-
• রক্তে শর্করা ও কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ
• খনিজ পদার্থ ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এ ভরপুর।
• এসিডিটি দূর করে
• গরমে, শরীর কে ঠান্ডা করতে সাহায্য করে।
• এছাড়াও এতে প্রচুর আঁশ থাকায় হজম, কোষ্টকাঠিন্য, ডায়রিয়া, আমাশয় ইত্যাদি সমস্যায় বেশ উপকারী ভূমিকা রাখে।

৳ 100.00

  • কাশতে কাশতে অনেক সময় সর্দি উঠে যায়,যাকে আয়ুর্বেদ মতে “পেট গরমের কাশি” বলে, সেক্ষেত্রে ১ চিমটি গোল মরিচের গুঁড়া, অর্ধেক চা চামচ ঘি, অর্ধেক চা চামচ মধু মিশিয়ে অল্প করে চেটে খেতে হবে। দিনে ২/৩ দিন বার, তাহলে ২/৩ দিনের মধ্যে “পেট গরমের কাশি ভাল হয়ে যাবে।
  • অনেক সময় ভারি খাবার বা খুব তেল চর্বি খাবার খেলে পেট ভার লাগে। গলা বুক জ্বালা হয়, বমিও হয়ে যায়। ১ চিমটি গোল মরিচ গুঁড়া ১০০ মিলি পানির সাথে মিশিয়ে পান করলে আরাম লাগবে।হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড থাকার কারনে হজমে সহায়তা করে। কিন্তু এটা কে অভ্যাস এ পরিনত করা যাবে না।
  • সর্দি কাশিতে দারুন উপকারি। ১ চিমটি গোলমরিচের গুঁড়া, ১ চামচ মধু মিশিয়ে, ২/৩ বার চেটে খান। আরাম পাবেন।
  • ভাইরাল ইনফেকশন রোধে সাহায্য করে। ভিটামিন সি থাকাতে গোলমরিচ anti-biotic হিসেবে কাজ করবে।
৳ 80.00

সাদা তিল(আস্ত)
পরিমান-৮০ গ্রাম
৮০ টাকা

১. রক্তের উচ্চচাপ নিয়ন্ত্রণে প্রভূত কার্যকরী সাদা তিল। কারণ, এই তিলে রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম যা রক্তচাপ হ্রাস করে।
২. সাদা তিলে একাধিক প্রয়োজনীয় ভিটামিন এবং মিনারেলস রয়েছে। তাই প্রতিদিনের খাবারে এই উপকরণটি ব্যবহার করলে শরীরের ক্যানসার প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে যায়।
৩।সাদা তিলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে জিঙ্ক, ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস, যা হাড় মজবুত করে এবং অস্টিওপোরোসিসের সম্ভাবনা কমায়।
৪.ফাইবার-যুক্ত হওয়ার ফলে হজম ও কোষ্ঠকাঠিন্য-সংক্রান্ত সমস্যাও দূর করে।
৫.সাদা তিলে রয়েছে কপার বা তামা যা গাঁটের ব্যথা, ফুলে যাওয়া, মাসল পেইন বা বাতের ব্যথার উপশমে কার্যকরী।
কিভাবে খাবেন-
১। এই তিল গুলো হালকা টেলে গুঁড়া করে, কাঁচা পেঁয়াজ, কাঁচা মরিচ, ধনেপাতা, লবন দিয়ে মাখিয়ে খেতে পারেন। চাইলে অল্প তিসির তেল/ সাদা তিলের তেল/ কালো তিলের তেল ও যোগ করতে পারেন।
২। ঘরে তৈরি যে কোন রকমের রুটির উপর দিয়ে বেক করতে পারেন।
৩। থাই/চাইনিজ খাবার রান্না তে ব্যবহার করতে পারেন।

৳ 95.00

চিয়া দানা/Chia Seeds
বহুল জনপ্রিয় চিয়া দানা এখন আমাদের দেশের বিভিন্ন জেলাতে চাষ হচ্ছে।মেক্সিকো ও দক্ষিণ আমেরিকাতে জন্ম নেয়া এই ছোট্ট দানা এখন চাঁদপুর, যশোর ও ময়মসিংহ এলাকায় চাষ হচ্ছে অল্প পরিমানে।
কি রয়েছে চিয়া দানাতে-
🧚‍♀️দুধের চেয়ে ৫ গুণ বেশী ক্যালসিয়াম
🧚‍♀️কমলার চেয়ে ৭ গুণ বেশি ভিটামিন সি
🧚‍♀️পালং শাকের চেয়ে ৩ গুণ বেশী আয়রন (লোহা)
🧚‍♀️কলার চেয়ে দ্বিগুণ পটাশিয়াম
🧚‍♀️স্যামন মাছের থেকে ৮ গুণ বেশী ওমেগা-৩

৳ 120.00

পণ্যঃ-ধনিয়া গুঁড়া
পরিমান: ২০০ গ্রাম
মূল্য: ১২০ টাকা
ঢেঁকিতে ভাঙ্গানো মশলাতে কোন ক্ষতিকারক preservative দেয়া নেই

৳ 1,750.00

লিলেন মেটেরিয়ালে তৈরি আনস্টিচ থ্রিপিছ।

পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে আমরা সচেতন।

কামিজ লম্বা ৫০’ ইন্চি

হাত লম্বা ২৪ ইন্চি

ওড়না ৫ হাত (জরজেট)

পায়জামা ২ গজ (২.৫ হাত বহর)

দাম ১৭৫০ টাকা

৳ 160.00

ঢেঁকি ছাঁটা হলুদ গুঁড়া
পরিমান: ৪০০ গ্রাম

মূল্য: ১৬০ টাকা

৳ 225.00

গ্রামীণ আচারের একটা মজা হচ্ছে, মরশুমি সবজির ব্যবহার। যেমন এখন গাজরের সময়, ক্ষেতের রাসায়নিক-মুক্ত গাজর শুকিয়ে জলপাই আচারে ব্যবহার হয়েছে।
উপাদান-জলপাই, গাজর, গুড়,অন্যান্য মশলা, ও সরিষার তেল।
স্বাদ: টক-ঝাল-মিস্টি
ওজন-৩৫০ গ্রাম
মুল্য-২৫০ টাকা
সংরক্ষণ পদ্ধতি-মাঝে মাঝে রোদে রাখুন। সব সময় শুকনো চামচ ব্যবহার করুন।

৳ 120.00

কিভাবে খাবেন/কেন খাবেন

সর্দি, কাশি এবং গলা ব্যাথাতে বহু যুগ ধরে ব্যবহার হয়ে আসছে তালমিছরি। ১ চা চামচ তালমিছরি, ১ চা চামচ ঘি আর অর্ধেক চা চামচ গোলমরিচের গুঁড়া দিয়ে মিশ্রণ বানিয়ে খেয়ে দেখুন, গলা ব্যাথা সেরে যাবে।
গরমে হিট স্ট্রোক হলে- সমপরিমাণ ধনিয়া গুঁড়ার সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে পানির সাথে পান করলে পেট ঠান্ডা হয়।
হজমের অসুবিধাতে পেট ব্যাথা হলে, সমপরিমাণ নিমপাতা গুঁড়ার সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে খেতে পারেন, পেট ব্যাথা চলে যাবে।
সমপরিমাণ তালমিছরি আর এলাচ গুঁড়ো পানি মিশিয়ে পেস্ট করে মুখের আলসারে লাগিয়ে রাখুন, জ্বালা পোড়া কমবে।
শিশুর মস্তিস্ক বিকাশেও ভুমিকা রাখে তালমিছরির পানি।এছাড়াও বাচ্চাদের নানা ধরনের রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে।
সাইনাস, মোবাইল/টিভি/কম্পিউটারে এক নাগাড়ে কাজ করে চোখের উপর চাপ পড়েছে? মাথা ব্যাথা করছে? সমপরিমাণ আদার রসের সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে খেয়ে দেখুন। মাথা ব্যাথা কমে যাবে।
প্রচুর পরিমানে আয়রন,পটাসিয়াম থাকার কারনে রক্তাপ্লতায় ভোগেন যারা তাদের জন্য আদর্শ তালমিছরি।
আর্থ্রাইটিস, অস্টিওপরেসিস- হাড়ক্ষয়ের রোগে নিয়মিত তালমিছরি খেলে উপকার পাওয়া যায়।

সতর্কতা-
যদিও এটা প্রাকৃতিকভাবে তৈরি, গ্লাইসেমিক ইন্ডেক্স (GI) এর পরিমান ৩৫% থাকে,তাও অনুরোধ থাকবে, যারা ডায়াবেটিক এর রোগী, তারা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী খাবেন

৳ 30.00

তোকমার দানায় প্রতি ১০০ গ্রামে লৌহ, ক্যালসিয়াম, থিয়ামিন, ম্যাংগানিজ, দস্তা, ফসফরাস, ভিটামিন-বি, ফোলেইট এবং রিবোফ্ল্যাভিন পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকে।
বেশ জনপ্রিয় তোকমা’র শরবত আমাদের দেশে। আসুন দেখে নেই, কি কি উপকারিতা রয়েছে।
উপকারিতা-
• রক্তে শর্করা ও কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ
• খনিজ পদার্থ ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এ ভরপুর।
• এসিডিটি দূর করে
• গরমে, শরীর কে ঠান্ডা করতে সাহায্য করে।
• এছাড়াও এতে প্রচুর আঁশ থাকায় হজম, কোষ্টকাঠিন্য, ডায়রিয়া, আমাশয় ইত্যাদি সমস্যায় বেশ উপকারী ভূমিকা রাখে।

৳ 100.00

  • কাশতে কাশতে অনেক সময় সর্দি উঠে যায়,যাকে আয়ুর্বেদ মতে “পেট গরমের কাশি” বলে, সেক্ষেত্রে ১ চিমটি গোল মরিচের গুঁড়া, অর্ধেক চা চামচ ঘি, অর্ধেক চা চামচ মধু মিশিয়ে অল্প করে চেটে খেতে হবে। দিনে ২/৩ দিন বার, তাহলে ২/৩ দিনের মধ্যে “পেট গরমের কাশি ভাল হয়ে যাবে।
  • অনেক সময় ভারি খাবার বা খুব তেল চর্বি খাবার খেলে পেট ভার লাগে। গলা বুক জ্বালা হয়, বমিও হয়ে যায়। ১ চিমটি গোল মরিচ গুঁড়া ১০০ মিলি পানির সাথে মিশিয়ে পান করলে আরাম লাগবে।হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড থাকার কারনে হজমে সহায়তা করে। কিন্তু এটা কে অভ্যাস এ পরিনত করা যাবে না।
  • সর্দি কাশিতে দারুন উপকারি। ১ চিমটি গোলমরিচের গুঁড়া, ১ চামচ মধু মিশিয়ে, ২/৩ বার চেটে খান। আরাম পাবেন।
  • ভাইরাল ইনফেকশন রোধে সাহায্য করে। ভিটামিন সি থাকাতে গোলমরিচ anti-biotic হিসেবে কাজ করবে।
৳ 80.00

সাদা তিল(আস্ত)
পরিমান-৮০ গ্রাম
৮০ টাকা

১. রক্তের উচ্চচাপ নিয়ন্ত্রণে প্রভূত কার্যকরী সাদা তিল। কারণ, এই তিলে রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম যা রক্তচাপ হ্রাস করে।
২. সাদা তিলে একাধিক প্রয়োজনীয় ভিটামিন এবং মিনারেলস রয়েছে। তাই প্রতিদিনের খাবারে এই উপকরণটি ব্যবহার করলে শরীরের ক্যানসার প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে যায়।
৩।সাদা তিলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে জিঙ্ক, ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস, যা হাড় মজবুত করে এবং অস্টিওপোরোসিসের সম্ভাবনা কমায়।
৪.ফাইবার-যুক্ত হওয়ার ফলে হজম ও কোষ্ঠকাঠিন্য-সংক্রান্ত সমস্যাও দূর করে।
৫.সাদা তিলে রয়েছে কপার বা তামা যা গাঁটের ব্যথা, ফুলে যাওয়া, মাসল পেইন বা বাতের ব্যথার উপশমে কার্যকরী।
কিভাবে খাবেন-
১। এই তিল গুলো হালকা টেলে গুঁড়া করে, কাঁচা পেঁয়াজ, কাঁচা মরিচ, ধনেপাতা, লবন দিয়ে মাখিয়ে খেতে পারেন। চাইলে অল্প তিসির তেল/ সাদা তিলের তেল/ কালো তিলের তেল ও যোগ করতে পারেন।
২। ঘরে তৈরি যে কোন রকমের রুটির উপর দিয়ে বেক করতে পারেন।
৩। থাই/চাইনিজ খাবার রান্না তে ব্যবহার করতে পারেন।

৳ 95.00

চিয়া দানা/Chia Seeds
বহুল জনপ্রিয় চিয়া দানা এখন আমাদের দেশের বিভিন্ন জেলাতে চাষ হচ্ছে।মেক্সিকো ও দক্ষিণ আমেরিকাতে জন্ম নেয়া এই ছোট্ট দানা এখন চাঁদপুর, যশোর ও ময়মসিংহ এলাকায় চাষ হচ্ছে অল্প পরিমানে।
কি রয়েছে চিয়া দানাতে-
🧚‍♀️দুধের চেয়ে ৫ গুণ বেশী ক্যালসিয়াম
🧚‍♀️কমলার চেয়ে ৭ গুণ বেশি ভিটামিন সি
🧚‍♀️পালং শাকের চেয়ে ৩ গুণ বেশী আয়রন (লোহা)
🧚‍♀️কলার চেয়ে দ্বিগুণ পটাশিয়াম
🧚‍♀️স্যামন মাছের থেকে ৮ গুণ বেশী ওমেগা-৩

৳ 120.00

পণ্যঃ-ধনিয়া গুঁড়া
পরিমান: ২০০ গ্রাম
মূল্য: ১২০ টাকা
ঢেঁকিতে ভাঙ্গানো মশলাতে কোন ক্ষতিকারক preservative দেয়া নেই

৳ 1,750.00

লিলেন মেটেরিয়ালে তৈরি আনস্টিচ থ্রিপিছ।

পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে আমরা সচেতন।

কামিজ লম্বা ৫০’ ইন্চি

হাত লম্বা ২৪ ইন্চি

ওড়না ৫ হাত (জরজেট)

পায়জামা ২ গজ (২.৫ হাত বহর)

দাম ১৭৫০ টাকা

৳ 160.00

ঢেঁকি ছাঁটা হলুদ গুঁড়া
পরিমান: ৪০০ গ্রাম

মূল্য: ১৬০ টাকা

৳ 225.00

গ্রামীণ আচারের একটা মজা হচ্ছে, মরশুমি সবজির ব্যবহার। যেমন এখন গাজরের সময়, ক্ষেতের রাসায়নিক-মুক্ত গাজর শুকিয়ে জলপাই আচারে ব্যবহার হয়েছে।
উপাদান-জলপাই, গাজর, গুড়,অন্যান্য মশলা, ও সরিষার তেল।
স্বাদ: টক-ঝাল-মিস্টি
ওজন-৩৫০ গ্রাম
মুল্য-২৫০ টাকা
সংরক্ষণ পদ্ধতি-মাঝে মাঝে রোদে রাখুন। সব সময় শুকনো চামচ ব্যবহার করুন।

৳ 120.00

কিভাবে খাবেন/কেন খাবেন

সর্দি, কাশি এবং গলা ব্যাথাতে বহু যুগ ধরে ব্যবহার হয়ে আসছে তালমিছরি। ১ চা চামচ তালমিছরি, ১ চা চামচ ঘি আর অর্ধেক চা চামচ গোলমরিচের গুঁড়া দিয়ে মিশ্রণ বানিয়ে খেয়ে দেখুন, গলা ব্যাথা সেরে যাবে।
গরমে হিট স্ট্রোক হলে- সমপরিমাণ ধনিয়া গুঁড়ার সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে পানির সাথে পান করলে পেট ঠান্ডা হয়।
হজমের অসুবিধাতে পেট ব্যাথা হলে, সমপরিমাণ নিমপাতা গুঁড়ার সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে খেতে পারেন, পেট ব্যাথা চলে যাবে।
সমপরিমাণ তালমিছরি আর এলাচ গুঁড়ো পানি মিশিয়ে পেস্ট করে মুখের আলসারে লাগিয়ে রাখুন, জ্বালা পোড়া কমবে।
শিশুর মস্তিস্ক বিকাশেও ভুমিকা রাখে তালমিছরির পানি।এছাড়াও বাচ্চাদের নানা ধরনের রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে।
সাইনাস, মোবাইল/টিভি/কম্পিউটারে এক নাগাড়ে কাজ করে চোখের উপর চাপ পড়েছে? মাথা ব্যাথা করছে? সমপরিমাণ আদার রসের সাথে তালমিছরি গুঁড়া মিশিয়ে খেয়ে দেখুন। মাথা ব্যাথা কমে যাবে।
প্রচুর পরিমানে আয়রন,পটাসিয়াম থাকার কারনে রক্তাপ্লতায় ভোগেন যারা তাদের জন্য আদর্শ তালমিছরি।
আর্থ্রাইটিস, অস্টিওপরেসিস- হাড়ক্ষয়ের রোগে নিয়মিত তালমিছরি খেলে উপকার পাওয়া যায়।

সতর্কতা-
যদিও এটা প্রাকৃতিকভাবে তৈরি, গ্লাইসেমিক ইন্ডেক্স (GI) এর পরিমান ৩৫% থাকে,তাও অনুরোধ থাকবে, যারা ডায়াবেটিক এর রোগী, তারা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী খাবেন

৳ 30.00

তোকমার দানায় প্রতি ১০০ গ্রামে লৌহ, ক্যালসিয়াম, থিয়ামিন, ম্যাংগানিজ, দস্তা, ফসফরাস, ভিটামিন-বি, ফোলেইট এবং রিবোফ্ল্যাভিন পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকে।
বেশ জনপ্রিয় তোকমা’র শরবত আমাদের দেশে। আসুন দেখে নেই, কি কি উপকারিতা রয়েছে।
উপকারিতা-
• রক্তে শর্করা ও কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ
• খনিজ পদার্থ ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এ ভরপুর।
• এসিডিটি দূর করে
• গরমে, শরীর কে ঠান্ডা করতে সাহায্য করে।
• এছাড়াও এতে প্রচুর আঁশ থাকায় হজম, কোষ্টকাঠিন্য, ডায়রিয়া, আমাশয় ইত্যাদি সমস্যায় বেশ উপকারী ভূমিকা রাখে।

৳ 100.00

  • কাশতে কাশতে অনেক সময় সর্দি উঠে যায়,যাকে আয়ুর্বেদ মতে “পেট গরমের কাশি” বলে, সেক্ষেত্রে ১ চিমটি গোল মরিচের গুঁড়া, অর্ধেক চা চামচ ঘি, অর্ধেক চা চামচ মধু মিশিয়ে অল্প করে চেটে খেতে হবে। দিনে ২/৩ দিন বার, তাহলে ২/৩ দিনের মধ্যে “পেট গরমের কাশি ভাল হয়ে যাবে।
  • অনেক সময় ভারি খাবার বা খুব তেল চর্বি খাবার খেলে পেট ভার লাগে। গলা বুক জ্বালা হয়, বমিও হয়ে যায়। ১ চিমটি গোল মরিচ গুঁড়া ১০০ মিলি পানির সাথে মিশিয়ে পান করলে আরাম লাগবে।হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড থাকার কারনে হজমে সহায়তা করে। কিন্তু এটা কে অভ্যাস এ পরিনত করা যাবে না।
  • সর্দি কাশিতে দারুন উপকারি। ১ চিমটি গোলমরিচের গুঁড়া, ১ চামচ মধু মিশিয়ে, ২/৩ বার চেটে খান। আরাম পাবেন।
  • ভাইরাল ইনফেকশন রোধে সাহায্য করে। ভিটামিন সি থাকাতে গোলমরিচ anti-biotic হিসেবে কাজ করবে।
৳ 80.00

সাদা তিল(আস্ত)
পরিমান-৮০ গ্রাম
৮০ টাকা

১. রক্তের উচ্চচাপ নিয়ন্ত্রণে প্রভূত কার্যকরী সাদা তিল। কারণ, এই তিলে রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম যা রক্তচাপ হ্রাস করে।
২. সাদা তিলে একাধিক প্রয়োজনীয় ভিটামিন এবং মিনারেলস রয়েছে। তাই প্রতিদিনের খাবারে এই উপকরণটি ব্যবহার করলে শরীরের ক্যানসার প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে যায়।
৩।সাদা তিলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে জিঙ্ক, ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস, যা হাড় মজবুত করে এবং অস্টিওপোরোসিসের সম্ভাবনা কমায়।
৪.ফাইবার-যুক্ত হওয়ার ফলে হজম ও কোষ্ঠকাঠিন্য-সংক্রান্ত সমস্যাও দূর করে।
৫.সাদা তিলে রয়েছে কপার বা তামা যা গাঁটের ব্যথা, ফুলে যাওয়া, মাসল পেইন বা বাতের ব্যথার উপশমে কার্যকরী।
কিভাবে খাবেন-
১। এই তিল গুলো হালকা টেলে গুঁড়া করে, কাঁচা পেঁয়াজ, কাঁচা মরিচ, ধনেপাতা, লবন দিয়ে মাখিয়ে খেতে পারেন। চাইলে অল্প তিসির তেল/ সাদা তিলের তেল/ কালো তিলের তেল ও যোগ করতে পারেন।
২। ঘরে তৈরি যে কোন রকমের রুটির উপর দিয়ে বেক করতে পারেন।
৩। থাই/চাইনিজ খাবার রান্না তে ব্যবহার করতে পারেন।

৳ 95.00

চিয়া দানা/Chia Seeds
বহুল জনপ্রিয় চিয়া দানা এখন আমাদের দেশের বিভিন্ন জেলাতে চাষ হচ্ছে।মেক্সিকো ও দক্ষিণ আমেরিকাতে জন্ম নেয়া এই ছোট্ট দানা এখন চাঁদপুর, যশোর ও ময়মসিংহ এলাকায় চাষ হচ্ছে অল্প পরিমানে।
কি রয়েছে চিয়া দানাতে-
🧚‍♀️দুধের চেয়ে ৫ গুণ বেশী ক্যালসিয়াম
🧚‍♀️কমলার চেয়ে ৭ গুণ বেশি ভিটামিন সি
🧚‍♀️পালং শাকের চেয়ে ৩ গুণ বেশী আয়রন (লোহা)
🧚‍♀️কলার চেয়ে দ্বিগুণ পটাশিয়াম
🧚‍♀️স্যামন মাছের থেকে ৮ গুণ বেশী ওমেগা-৩

৳ 120.00

পণ্যঃ-ধনিয়া গুঁড়া
পরিমান: ২০০ গ্রাম
মূল্য: ১২০ টাকা
ঢেঁকিতে ভাঙ্গানো মশলাতে কোন ক্ষতিকারক preservative দেয়া নেই

৳ 1,750.00

লিলেন মেটেরিয়ালে তৈরি আনস্টিচ থ্রিপিছ।

পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে আমরা সচেতন।

কামিজ লম্বা ৫০’ ইন্চি

হাত লম্বা ২৪ ইন্চি

ওড়না ৫ হাত (জরজেট)

পায়জামা ২ গজ (২.৫ হাত বহর)

দাম ১৭৫০ টাকা

৳ 160.00

ঢেঁকি ছাঁটা হলুদ গুঁড়া
পরিমান: ৪০০ গ্রাম

মূল্য: ১৬০ টাকা

৳ 225.00

গ্রামীণ আচারের একটা মজা হচ্ছে, মরশুমি সবজির ব্যবহার। যেমন এখন গাজরের সময়, ক্ষেতের রাসায়নিক-মুক্ত গাজর শুকিয়ে জলপাই আচারে ব্যবহার হয়েছে।
উপাদান-জলপাই, গাজর, গুড়,অন্যান্য মশলা, ও সরিষার তেল।
স্বাদ: টক-ঝাল-মিস্টি
ওজন-৩৫০ গ্রাম
মুল্য-২৫০ টাকা
সংরক্ষণ পদ্ধতি-মাঝে মাঝে রোদে রাখুন। সব সময় শুকনো চামচ ব্যবহার করুন।

Today Hot Deals

Navigation

My Cart

Close
Viewed

Recently Viewed

Close

Great to see you here !


Your personal data will be used to support your experience throughout this website, to manage access to your account, and for other purposes described in our privacy policy.

Already got an account?

Quickview

Close

Categories

Newsletter